পাকিস্তানে মাজারে ২০ জনকে কুপিয়ে হত্যা

পাকিস্তানে মাজারে ২০ জনকে কুপিয়ে হত্যা

পাকিস্তানের সারগোধা শহরে এক মাজারে তিন নারীসহ ২০ জনকে হত্যা করেছে ওই মাজারের খাদেম ও তার সহযোগী। এ ঘটনায় আরো তিনজন আহত হয়েছেন।

রবিবার ভোররাতে লাহোর থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন সারগোধার ডেপুটি কমিশনার লিয়াকত আলি চাট্টা।

চাট্টা জানান, সুফি সাধক আলি আহমদ গুজ্জরের মাজারের খাদেম আব্দুল ওয়াহেদ চাপাতি ও লাঠি ব্যবহার করে ওই মুরিদদের হত্যা করেছেন। নিহতদের মধ্যে ৬ জন একই পরিবারের সদস্য।

তিনি জানান, ওয়াহেদ গুরুতর মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। নিহতরা পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা।

চাট্টা জানান, সারগোধার জেলা হাসপাতালে হাজির হওয়া আহত এক নারী প্রথম এই হত্যাকাণ্ডের খবর দেন। আহত হয়েও যে তিনজন ঘটনাস্থল থেকে পালাতে পেরেছেন তিনি তাদের একজন।

মাজারের আশপাশ থেকে ১৯টি মৃতদেহ উদ্ধার করার বিষয়টিও নিশ্চিত করেছেন তিনি।

জানা গেছে, দরগার খাদেম আবদুল ওয়াহেদ মাজারে আসা মুরিদদের প্রথমে খাবারের সঙ্গে নেশা জাতীয় কিছু খাওয়ায়, তারপর তাদের জামাকাপড় খুলে নগ্ন করে এলোপাথাড়ি ছুরি দিয়ে কোপাতে থাকে। সঙ্গে চলে লাঠির বাড়ি। এই কাজে ইউসুফ নামে আরো একজন তাকে সাহায্য করে বলে জানা গেছে। ওয়াহেদ এবং ইউসুফ দুজনকেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এই গণহত্যার কারণ এখনো স্পষ্ট না হলেও প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, ওয়াহেদ কিছুদিন ধরেই ধর্মীয় সভায় যাচ্ছিল। দুই মহিলাসহ আরো তিনজন এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে। তাদের চিকিত্‍সা চলছে। গোটা এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিশ। চলছে তল্লাশি অভিযান।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট