ট্রাম্পকে তালাক দিতে মেলানিয়াকে রোজেনের পরামর্শ

ট্রাম্পকে তালাক দিতে মেলানিয়াকে রোজেনের পরামর্শ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও মেলানিয়া ট্রাম্পের বৈবাহিক সম্পর্ক বর্তমান সময়ে সমালোচনা ও রসাস্বাদনের বিষয়বস্তু হয়ে গেছে। ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের আচার ব্যবহার দেখে গুজব ছড়ানো হচ্ছে তারা পৃথক শয্যায় ঘুমাচ্ছেন।

ট্রাম্পের অন্যতম সমালোচক রোজেন ও’ডোনেলের বক্তব্য যেন মরা গাছে প্রাণ ফিরিয়ে দেওয়ার মতোই। ট্রাম্পের সম্পর্কে গুজবে প্রাণ দিয়ে দিলেন। একাধারে কৌতুকাভিনেত্রী, অভিনেত্রী, লেখিকা ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব রোজেন ও’ডোনেল তাদের পুত্র ব্যারন ট্রাম্পকে (১১) নিয়ে স্বামী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মেলানিয়াকে।

তবে ফার্স্ট লেডি সম্পর্কে টুইটারে প্রকাশিত বক্তব্য প্রমাণ করে এ সম্পর্কে তার কোনো ধরনের মাথা ব্যাথা নেই। আমেরিকান মূল্যবোধ পুনঃনির্মাণে ক্রমাগত আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ে যোগদানের মাধ্যমে বিশ্বকে নিরাপত্তা প্রদানের ক্ষেত্রেই মনোনিবেশ করেছেন তিনি।

RoseMelaniaDivorceDonald-640x480

রোজেন ও’ডোনেল

সাবেক সঞ্চালক রোজেন মেলানিয়াকে বলেন, বিবাহবিচ্ছেদের পরে তোমার পুত্র ও বাবা-মাকে নিয়ে পালিয়ে যাও। পুত্র ব্যারনের পড়াশোনার জন্য নিউ ইয়র্কে ট্রাম্প থেকে আলাদা থাকছেন মেলানিয়া। হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে গত সপ্তায় বলা হয়েছে, এ বছরের জুনেই ফার্স্ট লেডি পুত্র ব্যারনকে সঙ্গে নিয়ে হোয়াইট হাউসে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করবেন। ২০০৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পাবলিক শো ‘মিস ইউএসএ’তে রোজেন প্রকাশ্যে ট্রাম্পের সমালোচনা করেন। এরপর থেকে রোজেন ও ট্রাম্প বিভিন্ন অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যে একে অপরের সমালোচনা করতে থাকেন।

২০০৬ সালে এন্টারটেইনমেন্ট টু নাইটে ট্রাম্প বলেন, রোজেন অত্যন্ত বিরক্তিকর এক ব্যক্তি। তার দিকে এক নজর তাকালেই বোঝা যায় তিনি একজন বোকা। এরপরেও তিনি প্রায়ই কীভাবে টেলিভিশনে আসেন এ ব্যাপারে আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে। যদি আমি যুক্তরাষ্ট্র টক শো পরিচালনা করতাম তাহলে তাকে বরখাস্ত করতাম। ট্রাম্প আরো বলেন, আমি তার চর্বিযুক্ত বিশ্রী মুখের দিকে তাকিয়ে বলতাম, রোজেন এই মুহূর্ত থেকে তোমাকে বহিষ্কার করা হলো। এরআগেও ট্রাম্প রোজেনকে ‘শূকর’ ও ‘ধর্মান্তরিত’ বলে আখ্যায়িত করেছিলেন।

সম্প্রতি ট্রাম্প তার এক বিতর্কে বলেছেন, রোজেন এই মর্যাদাহানিকর মন্তব্যের যোগ্য এ ব্যপারে সবাই একমত হবেন। এ মন্তব্যের পরে রোজেন মোটেও দমে যাওয়ার পাত্রী নন। তিনি ট্রাম্পকে সম্বোধন করে এর যোগ্য প্রতি উত্তর দিয়েছেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট