ভিন্ন ভিন্ন কিছু কারণ মাথাব্যথার

ভিন্ন ভিন্ন কিছু কারণ মাথাব্যথার

সময়ে-অসময়ে সব মানুষের মধ্যেই সাধারণ একটি উপসর্গ হিসেবে মাথাব্যথা হতে দেখা যায় এবং প্রত্যেকের কাছেই ব্যাপারটা বিরক্তিকর। কখনো কখনো পুরো মাথা জুড়ে বা মাথার অংশবিশেষ জুড়ে প্রায়ই অনুভূত ব্যথা আমাদের দৈনন্দিন কর্মকান্ডের প্রধান বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়।

দৈনন্দিন জীবনে মাথা ব্যথা খুব সাধারণ একটি সমস্যা। মাথা ব্যথা অনেক বিরক্তিকর, তবে বেশীর ভাগ মাথা ব্যথাই মারাত্মক রোগ নির্দেশ করেনা। দুশ্চিন্তা ও মাইগ্রেন শতকরা ৯০ ভাগ মাথা ব্যথার জন্য দায়ী।

মাথা ব্যথা নানা রকমের। টেনশন হেডেক বা দুশ্চিন্তাজনিত মাথা ব্যথা, মাইগ্রেন হেডেক, ক্লাস্টার হেডেক, সাইনাস হেডেক, আর্জেন্ট হেডেক, আইহেডেক বা চক্ষুজনিত মাথা ব্যথা, হরমোনজনিত মাথা ব্যথা।

মাথাব্যথার কিছু ভিন্ন ভিন্ন কারণঃ

১। জায়ান্ট সেল আথ্রাইটিসঃ ধমনীতে শ্লৈষ্মিক ঝিল্লীর প্রদাহের কারণে অনুভূত মাথাব্যথাকে ‘জায়ান্ট সেল আথ্রাইটিস’ নামে অভিহিত করা হয়। সময়মতো চিকিৎসা না করা হলে চোখের দৃষ্টি কমে যেতে পারে। এটি স্ট্রোকের ঝুঁকিও বাড়ায়। এমন অবস্থায় দেরি না করে চিকিৎসকের কাছে যাওয়া উচিত।

২। মানসিক চাপজনিত মাথাব্যথাঃ মানসিক চাপজনিত কারণে মাথাব্যথা একটি সাধারণ ব্যাধি। সাধারণত পুরো মাথা জুড়ে, কপালের পার্শ্বদেশ এবং ঘাড়ের নিচে এই ব্যথা অনুভূত হয়। মাংসপেশীতে অধিক চাপ, অধিক শারীরিক এবং মানসিক পরিশ্রমের কারণে এই ধরনের মাথাব্যথা অনুভূত হয়। অতিরিক্ত মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকা এবং পরিমিত বিশ্রামের মাধ্যমে এর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

৪। মাইগ্রেনঃ এটি আসলে এক ধরনের বিশেষ বংশানুক্রমিক রোগ। পরিবারের কোনো সদস্যের মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে এটি পরবর্তী প্রজন্মে ছড়ায়। এক্ষেত্রে মাথার যেকোনো একপাশে প্রচন্ড ব্যথা অনুভূত হয়। মাইগ্রেনের ব্যথা সাধারণত ৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। এমন হলে আক্রান্ত ব্যক্তির বমি বমি ভাব কিংবা বমি এবং আলো ও শব্দে অস্বস্তি অনুভব করতে পারেন। সঠিক ওষুধ সেবনের মাধ্যমে এর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

৫। ক্যাফেইন এর প্রভাবঃ প্রচুর কফিপানের অভ্যাস থাকলে সময় মতো কফি না পান করতে পারলে এক ধরনের মাথাব্যথা অনুভূত হয়। এমন অবস্থা দেখা দিলে ধীরে ধীরে কফি পান ত্যাগ করা উচিত। কারণ কফিতে থাকা ক্যাফেইন আসলে এক ধরনের নেশা উদ্রেককারী বস্তু।

৬। সাইনোসাইটিসঃ সাইনোসাইটিস জনিত মাথাব্যথা সাধারণত কপাল জুড়ে, চোখের চারপাশে এবং গালে অনুভূত হয়। অ্যান্টিবায়োটিক এবং স্প্রে জাতীয় ওষুধের মাধ্যমে এর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

৭। ক্লাস্টার পেইনঃ প্রচন্ড যন্ত্রণাদায়ী এই ব্যথা সাধারণত চোখের চারপাশ জুড়ে অনুভূত হয়। এর কারণে চোখে পানি চলে আসা কিংবা নাকের মধ্যে অস্বস্তি হতে পারে। এই ধরনের মাথাব্যথা নারী-পুরুষ উভয়ের ক্ষেত্রেই দেখা যায়। চিকিৎসকেরা এখনো এর সঠিক কারণ নির্ধারণ করতে না পারলেও বলে থাকেন সাধারণত অ্যালকোহল এবং ধূমপানের প্রভাবে এমনটা হতে পারে। সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে এর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট