গঙ্গা ব্যারেজের বিকল্প জায়গা খুঁজতে কমিটি গঠন করা হবে

গঙ্গা ব্যারেজের বিকল্প জায়গা খুঁজতে কমিটি গঠন করা হবে

 

প্রস্তাবিত গঙ্গা ব্যারেজের বিকল্প জায়গা খুঁজতে এবং ভারত থেকে প্রাপ্ত পানির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে শিগগিরই উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি কারিগরি কমিটি গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ।

সচিবালয়ে ঢাকা সফররত চীনের পানিসম্পদমন্ত্রী চেন লির সঙ্গে বৈঠক শেষে এ কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী জানান, পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা, বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতে চায় চীন।

পানিসম্পদমন্ত্রী বলেন, ‘গঙ্গা ব্যারেজের প্রকল্পটা পুন: পরীক্ষা করছি এবং মন্ত্রণালয়ে একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ইতিমধ্যে সেটি হলো হাইপাওয়ার্ড টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে আমরা যে পানি পাচ্ছি এর সঠিক ব্যবহার কিভাবে হবে তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করবো।’

চীনের মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘পানি সম্পদ উন্নয়নে, বিশেষ করে নদী শাসনের ক্ষেত্রে, বন্যা নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে, দুযোগ মোকাবেলার ক্ষেত্রে চীনের অনেক অভিজ্ঞতা আছে। যা আমরা কাজে লাগাতে পারি। মিটিংয়ে এগুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’

‘তাদের (চীন) সহযোগীতায় আমাদের নদীগুলো খননের ব্যাপারে আমরা আগ্রহ প্রকাশ করেছি। এতে তারাও সম্মত আছেন বলে জানিয়েছেন।’

সুনির্দিষ্ট কোন প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়েছে কিনা- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘চীনের সঙ্গে আমাদের একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) রয়েছে, একটি সমন্বিত প্রকল্পের মাধ্যমে ব্রহ্মপুত্র, গঙ্গা ও মেঘনার ৪০০ কিলোমিটার নদী ব্যবস্থাপনার বিষয়ে। এটার বিষয়ে একটি স্টাডি রিপোর্ট পাওয়ার পর আমরা এটিকে এগিয়ে নিতে চাই। আমরা চাচ্ছি চীন যাতে এতে যুক্ত হয়।’

আনিসুল ইসলাম আরও বলেন, ‘হাইড্রোলজিক্যাল তথ্য-উপাত্ত আদান-প্রদানের বিষয়ে আলোচনা করেছি। এখন আমরা তিন থেকে চারদিন আগে বন্যার পূর্বাভাস দিতে পারি। চীনকে অনুরোধ করেছি এটা কীভাবে আরও বেশি সময় আগে করা যায় সে বিষয়ে সহায়তা চেয়েছি।’

বৈঠকে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাফর আহমেদ খান, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীন্যস্ত সংস্থা প্রধান এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত মা মিং কিয়াংসহ চীন সরকারের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক