গ্রীষ্ম চিঠি

গ্রীষ্ম চিঠি

দূর আকাশে বাজছে আজি
নতুন দিনের সুর।
সুরমন্ডলে গ্রীষ্ম হাওয়া,
শৌখিন বাবুদের পান্তা খাওয়া।
বসন্ত শেষে গ্রীষ্ম আলাপ।
গ্রীষ্মদহন চাতক যাপন।
আম্রকানন শুকনো পুকুর,
চড়া রৌদ্দুর আগুনভেজা।
উপোসী মাঠ বিভেদ রেখা।
পুঞ্জ মেঘে গগন কালা।
প্রথম হাওয়া আকাশছোঁয়া,
রোমাঞ্চিত মন মুগ্ধ নয়ন।
কৃষ্ণচূড়া পলাশ রাঙা।
কৃষ্ণচূড়ার মনটি সজীব
যেমন নতুন পাতা।
কৃষ্ণচূড়া খুলে দিল
মনের রঙীন খাতা।
বসন্ত যায় গ্রীষ্ম আসে
বোশেখ শুধু মুচকি হাসে।
শীতল মেঘে শিশির কণা।
গগনে মেঘে নিকষ হাওয়া
নিঃস্ব বুকে শূন্য মনে,
প্রলয় শেষে বৃষ্টি বিস্বাদ।
প্রখর তেজে বোশেখ এলো,
কোকিল তখন চাইল ছুটি
পলাশ ঝরে পড়ল লুটি।
শহর জুড়ে দাপুটে কাক,
ফুটপাতেই ঐ কুঁজো বুড়ি
নিস্তব্ধ নির্বাক।

সম্পর্কিত সংবাদ
শামসুদ্দিন হীরা