মেসির জোড়া গোলে জয়ে ফিরল বার্সেলোনা

মেসির জোড়া গোলে জয়ে ফিরল বার্সেলোনা

 

লিওনেল মেসির ঝলকে লা লিগার শিরোপা দৌড়ে থাকলো বার্সেলোনা। শনিবার রাতে কাম্প ন্যু ক্যাম্পে রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে ৩-২ ব্যবধানের জয়ে বার্সেলোনার অপর গোলটি পাকো আলকাসেরের। এই ম্যাচে মেসি নিজে করেছে দুটি গোল, অপরটিতে করেছেন সহায়তা। ম্যাচের সেরা এই পারফরমেন্স বার্সাকে শিরোপার সম্ভাবনায় রাখলো।

নিষেধাজ্ঞার জন্য ছিলেন না নেইমার। ব্রাজিলের এই ফরোয়ার্ডকে ছাড়া শক্তিশালী দলই মাঠে নামান কোচ লুইস এনরিকে। শুরু থেকেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠা ম্যাচে মেসির দারুণ গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা।

লুইস সুয়ারেসের পাসে বল পেয়ে আচমকা ২৫ গজ দূর থেকে জোরালো শট নেন মেসি। বল মাটি কামড়ে ডান কোণা দিয়ে জালে জড়ায়।

মেসির প্রথম গোলটি যদি হয় মৌসুমে তার অন্যতম সেরা তবে ৩৭তম মিনিটের গোলটি অতি সাধারণ। সুয়ারেসের শট ঠেকিয়েছিলেন গোলরক্ষক জেরোনিমো রুয়ি। ফিরতি বলে মেসি ঠিকমতো শট নিতে না পারলেও বল চলে যায় জালে।

এ মৌসুমে ক্লাবের হয়ে আর্জেন্টিনা অধিনায়কের গোল হলো ৪৫টি। আর দুটি গোল হলেই বার্সেলোনার জার্সিতে ৫০০ গোলের মাইলফলকে পৌঁছবেন পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার।

ম্যাচে ফিরতে সময় নেয়নি সোসিয়েদাদ। ৪২তম মিনিটে ডি-বক্সের বাঁ দিক থেকে ইনিগো মার্তিনেসের শট গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেনের পায়ে লেগে দিক পাল্টে ডিফেন্ডার সামুয়েল উমতিতির মাথায় লেগে জালে জড়িয়ে যায়।

দুই মিনিট পর ব্যবধান আবার বাড়ায় স্বাগতিকরা। এবার গোল তৈরি করে দেয়ার ভূমিকায় মেসি। ডি-বক্সের ভেতর বাঁ দিকে মেসির বাড়ানো বল কোনাকুনি শটে দূরের পোস্ট দিয়ে জালে পাঠান শুরুর একাদশে খুব কমই সুযোগ পাওয়া আলকাসের।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে আবার ব্যবধান কমিয়ে ফেলে অতিথিরা। উঁচু পাস প্রথম ছোঁয়ার শটে নীচের ডান কোণা দিয়ে জালে পাঠান জাবি প্রিয়েতো। টের স্টেগেনের করার কিছু ছিল না।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই আধিপত্য বজায় রেখে খেলে সোসিয়েদাদ। ৭২তম মিনিটে সমতা ফেরানোর কাছে চলে গিয়েছিল তারা। প্রায় ৫০ গজ দূর থেকে আসিয়ের ইয়াররামেন্দির উঁচু শটে আঙুলের ডগা দিয়ে বল ক্রসবারের উপর দিয়ে পাঠান টের স্টেগেন।

৮৬তম মিনিটে বল পায়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন মেসি। তবে হ্যাটট্রিকের জন্য শট নেওয়ার সুযোগ পাননি। যোগ করা সময়ে সুয়ারেসকে গোলবঞ্চিত করেন গোলরক্ষক।

এই জয়ে ৩২ ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনার পয়েন্ট হলো ৭২।

আগের ম্যাচে স্পোতিং গিহনের মাঠ থেকে ৩-২ গোলের জয় পাওয়া রিয়াল মাদ্রিদ ৩১ ম্যাচে ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে।

ওসাসুনাকে ৩-০ গোলে হারানো আতলেতিকো মাদ্রিদ ৩২ ম্যাচে ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট