এক ছাত্র কৌতুহলবশত কাজটি করেছে

এক ছাত্র কৌতুহলবশত কাজটি করেছে

সিলেটের শাহি ঈদগাহ এলাকার স্কলার্সহোমের সিঁড়ির নিচে গতকাল মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১১টায় একটি বোমাসদৃশ বস্তু পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছেই শিক্ষার্থী ও প্রতিষ্ঠানে কর্মরতদের নিরাপদে বের করে নেয়।

সিলেট নগরের শাহি ঈদগাহ এলাকায় বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্কলার্সহোম ক্যাম্পাসে পাওয়া বস্তুটি বোমা নয়। ঢাকা থেকে যাওয়া র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিট আজ বুধবার পলিথিনে মোড়ানো বস্তুটি পরীক্ষা করে জানায়, এটা বোমা নয়, কাগজের পুঁটলি।

স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, স্কুলের দশম শ্রেণির এক ছাত্র কৌতুহলবশত কাজটি করেছে বলে তারা নিশ্চিত হয়েছে। ওই ছাত্র এখন পুলিশের হেফাজতে।

গতকাল মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে সিঁড়ির নিচে বস্তুটি দেখতে পেয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ পুলিশে খবর দেয়। মহানগরের বিমানবন্দর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রথমেই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ কর্মরত ব্যক্তিদের নিরাপদে সরিয়ে নেয়। এরপর তারা র‍্যাব-৯-কে বস্তুটি উদ্ধারে অনুরোধ জানায়। র‍্যাবের সদস্যরা এসে বস্তুটি প্রত্যক্ষ করে এটি ‘এক্সক্লুসিভ ডিভাইস বা আইডি’ বলে ধারণা করেন এবং ঢাকায় র‍্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটকে খবর দেন। গতকাল রাতে ওই ইউনিট ঢাকা থেকে সিলেটে পৌঁছায়।

আজ সকাল নয়টায় বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিট স্কুলে ঢোকে এবং বস্তুটি পরীক্ষা করে।

বেলা ১১টার দিকে স্কুলের অধ্যক্ষ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জুবায়ের সিদ্দিকী সাংবাদিকদের বলেন, পলিথিনে মোড়ানো বস্তুটি স্কচটেপ দিয়ে আটকানো ছিল এবং বাইরে তার বেরিয়ে ছিল। বোমা ভেবে পুলিশে খবর দেওয়া হয়ে ছিল। র‍্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিট তা পরীক্ষা করে দেখেছে, কিছু কাগজ পলিথিনে মুড়িয়ে দুই পাশে তার দিয়ে বোমার আকার দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, স্কুলের দশম শ্রেণির এক ছাত্র টিভি সিরিয়াল ও সিনেমা দেখে কৌতুহলবশত খেলার ছলে এ কাজ করেছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এর সঙ্গে রাজনৈতিক দল বা সংগঠনের সংশ্লিষ্টতা নেই। ওই ছাত্র এখন পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট