সৌদি মন্ত্রীর ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে

সৌদি মন্ত্রীর ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে

বিচারের মুখোমুখি হতে হচ্ছে সৌদি আরবের সদ্য পদচ্যুত বেসামরিকবিষয়ক মন্ত্রী খালেদ আল-আরাজকে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে ৩ থেকে ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। আইনজীবী ও আইন-বিশেষজ্ঞরা এ কথা জানান। গত শনিবার এক রাজকীয় ফরমানবলে আরাজকে মন্ত্রিপরিষদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। খবর সৌদি গেজেটের।

আইনজীবী ও আইন-বিশেষজ্ঞরা জানান, সৌদি আরবে মন্ত্রীদের বিচারের বিধানটি চালু হয় ৫৮ বছর আগে। আর সেই বিধানের আওতায় এই প্রথম কোনো মন্ত্রীর বিচার হতে যাচ্ছে। পদচ্যুতমন্ত্রী খালেদ আল-আরাজের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি তার এক ছেলেকে পৌর ও পল্লীবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে ২১ হাজার ৬০০ রিয়াল বেতনে ঊর্ধ্বতন পদে চাকরি দিয়েছেন। অথচ ছেলেটি কেবল এসএসসি পাস। এ ছাড়া তার ছেলের বয়সও ৩৩ বছরের কম। সৌদি আরবে ৩৩-এর কম বয়সী কাউকে বিশেষজ্ঞ বা সিনিয়র কনসালট্যান্ট পদে নিয়োগ দেওয়া যায় না। নিয়োগ দেওয়ার আগে তার ডাক্তারি পরীক্ষাও করা হয়নি। তিন মন্ত্রী ও হাইকোর্টের দুই বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত একটি কমিটি এসব অভিযোগ তদন্ত করে দেখবে। জ্যেষ্ঠতম মন্ত্রী এ কমিটির প্রধান হবেন।

কমিটি ৩০ দিনের মধ্যে তদন্ত শেষ করে বিচারিক আদালতে প্রতিবেদন জমা দেবে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট