রয়্যাল চ্যালেঞ্জ থামিয়ে ছয় নম্বরে লায়ন্স

রয়্যাল চ্যালেঞ্জ থামিয়ে ছয় নম্বরে লায়ন্স

ফের বড় ধাক্কা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের। চিন্নাস্বামীতে সাত উইকেটে জিতল গুজরাট লায়ন্স। বোলিংয়ে অ্যান্ড্রু টাই ও ব্যাটিংয়ে অ্যারন ফিঞ্চের ইনিংসে গুটিয়ে গেল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স । গত ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে বিশ্রীভাবে হারতে হয়েছিল। ৪৯ রানে অলআউট হয়ে যায় টিম। আজ ১৩.৫ ওভারে প্রয়োজনীয় রান তুলে নিল গুজরাত লায়ন্স।

চতুর্থ ওভারের শেষ বল। বল করতে আসেন কেরালার ছেলে বাসিল থাম্পি। বেশ ভালো একটা ফ্লিক করেন বিরাট। কিন্তু অ্যারন ফিঞ্চের হাতে ধরা পড়ে ফিরে যান তিনি। আজ এত বেশি উত্তেজিত নন। শুধু ভাগ্যের দোষ দিতে দিতে মাঠ ছাড়লেন বিরাট। এরপর বল করতে আসেন গুজরাত লায়ন্সের অ্যান্ড্রু টাই। তাঁর ডেলিভারিতেই ১১ বলে ৮ রান করে স্লিপে খোঁচা দিয়ে ফিরলেন গেইল। পরের ওভারের প্রথম বলেই ফিরলেন ট্রেভর হেড। এবার আইপিএল-এ একবার হ্যাটট্রিক করে ফেলেছেন। এবার ফের হ্যাটট্রিকের সুযোগ আসে টাইয়ের সামনে। হ্যাটট্রিক এল না, কিন্তু রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স এর ব্যাটিং লাইন আপ ভেঙে দিলেন টাই। তৃতীয় উইকেটও তুলে নিলেন তিনি। ফেরালেন মনদীপ সিংকেও। ৬০ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে আজও চরম ছন্নছাড়া  ছিল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স । যাদব ফিরলেও ১৯ বলে ৩২ রানের ইনিংস খেলে টিমকে ১০০ রানের গণ্ডি পার করালেন পবন নেগি। ১৩৪ রানে শেষ হয় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ইনিংস।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই আউট হয়ে যায় টিমের দুই ওপেনার ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম ও ইশান কিষাণ। কিন্তু খেলা ধরে নেন সুরেশ রায়না ও অ্যারন ফিঞ্চ। ৩০ বলে ৩৪ রান করে অপরাজিত ছিলেন রায়না। ৩৪ বলে ৭২ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে ম্যাচ বের করে নেন ফিঞ্চ। পবন নেগির বলে আউট হয়ে ফিরলেও খেলা ততক্ষণে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স এর হাত থেকে বেরিয়ে গেছে। অনায়াসে জয় ছিনিয়ে নিল গুজরাট লায়ন্স।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট