‘বাবার বয়সী একটা লোক আমাকে শারীরিক ভাবে হেনস্থা করেছিল’

‘বাবার বয়সী একটা লোক আমাকে শারীরিক ভাবে হেনস্থা করেছিল’

কেরিয়ারের শুরু থেকেই তিনি স্পষ্টবক্তা। বলি ইন্ডাস্ট্রিতে সোজাসাপ্টা কথা বলার জন্য অনেক সমালোচনা শুনতে হয়েছে তাঁকে। তবুও তিনি অকপট। তিনি অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। ইন্ডিয়া টুডে-র খবর অনুযায়ী, সম্প্রতি এক সাক্ষাত্কারে ফের বিস্ফোরক নায়িকা। মুখ খুলেছেন বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে।

সহকর্মীর সঙ্গে সম্পর্ক মানেই কমপ্লিকেটেড’’

কঙ্গনা মনে করেন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সদস্যদের হাতে সময় এত কম যে বাইরের জগৎ নয়, বরং বেশির ভাগ সময় ইন্ডাস্ট্রির মধ্যেই তাঁদের সম্পর্ক হয়। কিন্তু দিনের শেষে কোনও সহকর্মীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হলে বিষয়টা নাকি জটিল হয়ে যায়।

‘‘সফল মহিলারা বিবাহিত পুরুষদের প্রেমে পড়েন’’

কঙ্গনার কথায়, ‘‘সফল মহিলাদের কাছে এসে বিবাহিত পুরুষরা তাঁর স্ত্রীর দুর্নাম করতে থাকেন। বিবাহিত জীবনে কত কষ্টে আছেন তিনি, তার ব্যখ্যা দেন। ফলে মহিলারা অনেক সময় তাঁদের ওপর দুর্বল হয়ে পড়েন। ১৫ থেকে ২৫ বছরের মহিলাদের মধ্যে এই প্রবণতা দেখেছি। আমি তো এখনও পর্যন্ত কোনও বিবাহিত পুরুষকে সুখী দেখলাম না।’’

‘‘১৭ বছর বয়সে শারীরিক ভাবে নির্যাতিতা হয়েছিলাম’’

কঙ্গনা জানিয়েছেন, ১৭ বছর বয়সে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হন তিনি। তাঁর কথায়, ‘‘বাবার বয়সী একটা লোক আমাকে শারীরিক ভাবে হেনস্থা করেছিল। কিন্তু এটা কোনও ভাবেই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে জড়িত নয়।’’

‘‘টাকার জন্য সিনেমা করি’’

অভিনয় দক্ষতার জন্য বহুবার প্রশংসিত হয়েছেন কঙ্গনা। পেয়েছেন বহু পুরস্কার। কিন্তু তাঁর কাছে বিষয়টা অন্যরকম। সহজ ভাষায় তাঁর স্বীকারোক্তি, ‘‘আমি টাকার জন্য সিনেমা করি।’’

গত বছর হৃতিক রোশনের সঙ্গে কঙ্গনা রানাওয়াতের ঝামেলা উঠে এসেছিল শিরোনামে। তার জল গড়ায় আদালত পর্যন্ত। শোনা যাচ্ছে, এই সাক্ষাত্কারে নাকি হৃতিককে ক্ষমা চাওয়ার কথাও বলেছেন নায়িকা। ওই বিতর্কের সময় যে মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন তার কথাও শেয়ার করেছেন তিনি। যদিও হৃতিকের নাম নাকি প্রকাশ্যে বলেননি। তবে যা বলেছেন, তাতে ইঙ্গিত যে হৃতিকের দিকেই তা একবাক্যে স্বীকার করে নিচ্ছে ইন্ডাস্ট্রির একটা বড় অংশ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট