নিষিদ্ধ হলেন শ্রীলঙ্কার তারকা ক্রিকেটার চামারা সিলভা

নিষিদ্ধ হলেন শ্রীলঙ্কার তারকা ক্রিকেটার চামারা সিলভা

ফিক্সিং নামটা আধুনিক ক্রিকেটের এক অভিশাপের নাম। ঘরোয়া লিগ কিংবা আন্তর্জাতিক ম্যাচ ফিক্সিং ছড়িয়েছে ছোঁয়াছের মত। এবার ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে নিষিদ্ধ হল শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রিকেটার চামারা সিলভা।

ঘটনা গত জানুয়ারীতে শ্রীলঙ্কার টায়ার ‘বি’ এর একটি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচে, ওই ম্যাচে অস্বাভাবিক রান রেটে স্কোরিংই সন্দেহে ফেলেছিল। কালাতুরা ফিজিক্যাল কালচার ক্লাবের বিপক্ষে পানাদুরা ক্রিকেট ক্লাব অস্বাভাবিক হারে রান তোলে, ম্যাচের ৩য় দিন একটা পর্যায়ে নিজেদের স্কোরবোর্ডে ওভার প্রতি ১০.৩৪ করে ২২.২ ওভারে ২২৩ রান তুলে ফেলে, যা একটি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ বিবেচনায় সত্যিই অস্বাভাবিক। শুধু তাই নয় একই দিনে দু দলের দুই ইনিংস দ্রুত শেষও হয়ে যায়।

জয়ের জন্য পানাদুরার প্রয়োজন পড়ে ১৫ ওভারে ১৬৭ অথচ এই রান তারা তুলে ফেলেন মাত্র ১৩.৪ ওভারেই। ম্যাচটির পর থেকেই অনুসন্ধানে নামে শ্রীলঙ্কান বোর্ড। একটা পর্যায়ে নিশ্চিত হওয়া গেল পানাদুরা কে টায়ার ‘বি’ থেকে ‘এ’ তে নিতেই ফিক্সিং হয়েছিল ম্যাচটি।

আর পানাদুরার কোচ কাম অধিনায়ক হিসেবে ওইদিন মাঠে না নেমেও বড় শাস্তির মুখেই পড়েছে চামারা , চামারা ছাড়াও কালাতুরার অধিনায়ক মনোজ দেসপ্রিয়াও ২ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন। এছাড়াও অনেক খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাকে কমপক্ষে ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। হিসেবের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয় ম্যাচটি, রেগুলেশন থেকেও বাদ পড়ে দল দু’টি।

তবে এদের মধ্যে বড় খবর চামারার সব ধরনের ক্রিকেট বিষয়ক কার্যক্রম থেকে ২ বছরের নিষিদ্ধ হওয়া। নিষিদ্ধের পাশাপাশি শাস্তি পাওয়া সকল খেলোয়াড় , কোচ, কর্মকর্তা কে ৫ লাখ রুপি জরিমানাও করা হয়।

শ্রীলঙ্কার হয়ে ১১ টেস্ট ও ৭৫ ওয়ানডে খেলা চামারা মাঠে না নেমেও কেন এত বড় শাস্তি পেলেন সেটাও ব্যাখ্যা করেছেন লঙ্কান বোর্ডের ভাইস প্রেসিডেন্ট কে মাথিভান্না বলেন, ‘সে পানাদুরার অধিনায়ক কাম কোচ। সুতরাং, এ ব্যাপারে তিনি কোনোভাবেই দায়িত্ব এড়াতে পারেন না।’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট