মার্কিন হুমকি মোকাবেলায় প্রতিরক্ষা শক্তি জোরদার করা হবে: ইরান

মার্কিন হুমকি মোকাবেলায় প্রতিরক্ষা শক্তি জোরদার করা হবে: ইরান

তেহরানের পরমাণু ইস্যুতে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতার প্রতি আন্তর্জাতিক সমাজের সমর্থনের ফলে এ সমঝোতা আরো শক্তিশালী হয়েছে এবং আমেরিকা আরো একা হয়ে পড়েছে। লেবাননে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ফতেহ আলী এ মন্তব্য করেছেন।

মঙ্গলবার লেবাননের রাজধানী বৈরুতে দেশটির সামরিকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা এবং বিদেশী কূনীতিকদের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে ফতেহ আলী বলেন, “ইরান পরমাণু সমঝোতার প্রতি অবিচল থাকবে। তবে ইরানের  স্বার্থ এবং অধিকার লঙ্ঘিত হলে তেহরানও পরমাণু সমঝোতার ধারাগুলোকে প্রত্যাখ্যান করবে এবং কোনো ধরনের পূর্বশর্ত ছাড়াই শান্তিপূর্ণ পরমাণু কর্মসূচি চালিয়ে যাবে।”

গত ১৩ অক্টোবর শুক্রবার রাতে  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আবারও ইরানের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ করেছেন। তিনি আইআরজিসি’র বিরুদ্ধে নতুন করে নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করেছেন। সিরিয়া ও ইরাকে সন্ত্রাসবাদ দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে আইআরজিসি। রাষ্ট্রীয় আহ্বানে সাড়া দিয়ে আইআরজিসি’র পক্ষ থেকে ওই দুই দেশে সামরিক উপদেষ্টা পাঠানো হয়েছে।

ইরানের প্রতিরক্ষা শক্তি বাড়ানোর গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে দেশটির এ কূটনীতিক আরো বলেন, “এ অঞ্চলে ইহুদিবাদী ইসরাইলের অবৈধ শাসনব্যবস্থাকে সুরক্ষা দিতে আমেরিকা এবং তার মিত্র দেশগুলোর ইরান বিরোধী বিদ্বেষপূর্ণ নীতি অব্যাহত রয়েছে। এ অঞ্চলে কোটি কোটি ডলার অর্থমূল্যের মার্কিন অস্ত্র সরবরাহ করা হচ্ছে। তাই এসব পরিস্থিতে নিজেদের প্রতিরক্ষা শক্তি  জোরদার করার ক্ষেত্রে ইরান অলস বসে থাকতে পারে না।”

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট