বিতর্কিত গোলে মালাগাকে হারালো বার্সেলোনা

বিতর্কিত গোলে মালাগাকে হারালো বার্সেলোনা

বিতর্কিত গোলে জয় পেয়ে লা লিগায় নিজেদের অবস্থান সুসংহত করেছে বার্সেলোনা। শনিবার তারা মালাগাকে হারিয়েছে ২-০ গোলে। সেই সুবাদে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে তারা ৮ পয়েন্টে এগিয়ে গেল।

বার্সেলোনার হয়ে প্রথম গোলটি করেন জেরার্ড দেউলোফেউ। ১১৩ সেকেন্ডের ওই গোলটি ছিল বিতর্কিত। মাঠের বাইরে যাওয়া বল থেকে তিনি ওই গোলটি করেছেন বলে দেখা যায়। তবে এর মাধ্যমে তিনি বার্সায় তার গোল করার ১৬ ম্যাচের অপেক্ষার অবসান ঘটালেন।

খেলার বিবরণীতে দেখা যায়, নু ক্যাম্পে তখন ম্যাচের কেবল দুই মিনিট। দর্শকরাও পুরোপুরি ধাতস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। বাঁ প্রান্ত দিয়ে আক্রমণের চেষ্টা করেছিলেন বার্সেলোনা লেফট-ব্যাক লুকাস দিনিয়ে। তার ক্রস মালাগার এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে চলে যায় বাইলাইনের ওপাশে। খুব স্বাভাবিকভাবেই গোল কিক ভেবে থেমে গিয়েছিলেন মালাগার ​খেলোয়াড়রা। কিন্তু দিনিয়ে থামেননি, রেফারি কিংবা তাঁর সহকারীদের কেউই গোল কিকের বাঁশি বাজাননি!

বল বাইলাইন পেরিয়ে গেলেও চলতি বলেই দৌড়ের ওপর আবারো ক্রস করেন দিনিয়ে। মালাগার বক্সে দাঁড়িয়ে থাকা জেরার্ড দেউলোফেউ কোনোরকম বাধা ছাড়াই সেই ‘অবৈধ’ বল পা​ঠিয়েছেন জালে! হতভম্ব মালাগার খেলোয়াড়রা প্রতিবাদে ছুটে যান রেফারি গঞ্জালো ফুয়ের্তেসের কাছে। কিন্তু তিনি বাজালেন গোলের বাঁশি! অথচ ভিডিও রিপ্লেতে দেখা গেছে, দিনিয়ে দ্বিতীয়বার ক্রস করার আগেই বল চলে গিয়েছিল বাইলাইনের ওপাশে। আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, গোটা নু ক্যাম্প তা দেখতে পেলেও শুধু চোখ এড়িয়ে গেছে রেফারি এবং তাঁর সহকারীদের!

​প্রথমার্ধ শেষে তাই ম্যাচ ছাপিয়ে দানা বাঁধতে শুরু করেছিল রেফারি নিয়ে বিতর্ক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় তুলেছেন ফুটবলপ্রেমীরা। কিন্তু ৫৬ মিনিটে দারুণ এক গোল করে সেই বিতর্ককে কিছুটা হলেও স্তিমিত করে দেন আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। গোলটা আসলে বার্সার দুই কিংবদন্তির বোঝাপড়ার ফসল। মালাগা বক্সের সামনে থেকে ইনিয়েস্তাকে পাস বাড়ান মেসি। প্রায় ১৬ গজ দূর থেকে স্প্যানিশ মিডফিল্ডারটির বাঁ পায়ের শট মালাগা ডিফেন্ডার রবার্তো রোজালেসের পায়ে লেগে আশ্রয় নেয় জালে। চলতি মৌসুমে এটাই প্রথম গোল ইনিয়েস্তার।

লা লিগা ক্যারিয়ারে এ নিয়ে ৩৯১ ম্যাচে বার্সার মোট ৫০০ গোলে প্রত্যক্ষ অবদান রাখলেন মেসি। এর মধ্যে ৩৬০ গোল নিজে করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরও ১৪০ গোল। তবে মালাগার বিপক্ষে গোল পেতে পারতেন মেসি। নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে হেড থেকে তার করা গোলটি অফসাইডের কারণে বাতিল করে দেন রেফারি।

শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয়ে ম্যাচ থেকে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট তুলে নিয়েছে আর্নেস্তো ভ্যালভার্দের দল। তবে প্রথমার্ধের ওই বিতর্কিত গোলের পর থেকে বিরতির আগ পর্যন্ত মালাগার রক্ষণভাগে সেভাবে আক্রমণ করতে পারেনি স্বাগতিকেরা। মেসিদের খেলার ধার বেড়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। শুরু থেকেই একের পর এক আক্রমণ করেছে মেসি, সুয়ারেজ ও দেউলোফেউকে নিয়ে সাজানো ভ্যালভার্দের আক্রমণভাগ। সেই ধারাবাহিকতায় ৭৪ মিনিটে গোলের দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন লুই সুয়ারেজ। সার্জি রবার্তো মালাগার বক্সে ঢুকে পাস দিয়েছিলেন সুয়ারেজকে। উরুগুয়ে ফরোয়ার্ডের সামনে ছিলেন শুধু মালাগা গোলরক্ষক। কিন্তু সুয়ারেজ বলটা কীভাবে গোলপোস্টের বাইরে মারলেন, সেটা শুধু তিনিই বলতে পারবেন।

ম্যাচের ৬৬ শতাংশ সময় বার্সা বল দখলে রাখলেও ভালোই আক্রমণে করছে মালাগা। বার্সার ১২টি আক্রমণের জবাবে ১৩বার আক্রমণ করেছে টেবিলে তলানির দলটি। এ জয়ে ৯ ম্যাচে মোট ২৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রাখল ভ্যালভার্দের দল। তবে রেফারি ফুয়ের্তেসের ‘উপহার’ দেওয়া সেই গোলটি নিয়ে বিতর্ক কিন্তু সহসাই থামছে না। ম্যাচ চলাকালীন লা লিগার অফিশিয়াল এক্সপার্ট আন্দুজার অলিভিয়ের রেডিও মার্কাকে বলেন, ‘বল মাঠের বাইরে চলে গিয়েছিল। গঞ্জালো ফুয়ের্তেস কিংবা তার অফিশিয়ালদের কেউই এই অবৈধ ব্যাপারটা দেখেননি এবং গোল দিয়েছেন। এটা আসলে যৌথ ভুল।’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট