কারাগারে বন্দিরা ল্যাপটপে দিচ্ছে খাবার অর্ডার

কারাগারে বন্দিরা ল্যাপটপে দিচ্ছে খাবার অর্ডার

যুক্তরাজ্যের ওয়েল্যান্ডের এইচএমপি কারাগারে মিলছে ডিজিটাল সেবা। সেখানকার বন্দিরা ল্যাপটপ ব্যবহার করে জেলে বসেই নানা রকম সুযোগ সুবিধা নিতে পারছে। এমনকি, আপনজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে তাদের কক্ষে দেয়া হয়েছে টেলিফোন ব্যাবহারের সুযোগ।

এ খবর দিয়েছে যুক্তরাজ্যের প্রভাবশালী অনলাইন দ্য ইনডিপেন্ডেন্ট। নরফোকে অবস্থিত ক্যাটাগরি সি ফ্যাসিলিটির এই কারাগারে প্রায় ১০০০ বন্দি রয়েছে। এর মধ্যে শতাধিক যাবজ্জীবন দ-প্রাপ্ত আসামী।

কারগারটি আধুনিকায়নের নমুনা উল্লেখ করেছে দ্য প্রিজন ওয়াচডগ। এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এইচএম ইন্সপেক্টরেট অব প্রিজন্স (এইচএমআইপি)। এ প্রতিবেদনে একজন কারাপরিদর্শক বলেন, এসব আধুনিক সুযোগ-সুবিধার ফলে কারাবন্দিদের জীবনে আমূল পরিবর্তন এসেছে। গতি পেয়েছে প্রাত্যহিক কাজকর্ম। তারা এখন কারাকক্ষে বসেই ল্যাপটপে খাবারের মেন্যু নির্বাচন করা থেকে কাপড়চোপড়ের ফরমায়েশ পর্যন্ত দিতে পারছে।

ইন্টারনেটের সংযোগ ছাড়াই এসব সুবিধা দেয়া হচ্ছে। এছাড়াও, ২০১৩ সাল থেকে প্রতিটি কারাকক্ষে টেলিফোন সংযোগ দেয়া হয়েছে। অবশ্য, যাতে কারাবন্দিদের কাজের সময় মনোযোগ ব্যাহত না হয় সে দিকে খেয়াল রেখে মূল কার্যদিবসগুলোতে ফোনের ব্যবহার সীমিত করে দেয়া হয়। এসব উদ্যোগে কারাবন্দিদের কাছ থেকে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে।

এ ধরনের ইতিবাচক উন্নয়নের উদ্যোগ গ্রহণ করার ফলে কারাব্যবস্থাপনা আরো গতিশীল হয়েছে বলে মত দেন তিনি। এ বছরের কোন এক সময়ে সীমিতভাবে কারাবন্দিদের জন্যে ভিডিও কলের সুবিধা উন্মুক্ত করা হবে বলেও এ প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। তথ্য ও যোগাযোগ ব্যবস্থার বৈশ্বিক উন্নয়নের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন সুধীজনরা।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট