‘গেইলের যৌনাঙ্গের অর্ধেকটা দেখে ফেলি’

‘গেইলের যৌনাঙ্গের অর্ধেকটা দেখে ফেলি’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেট তারকা ক্রিস গেইলের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ আনা অস্ট্রেলীয় নারী মামলার শুনানিতে তুলে ধরলেন তার ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার কথা। জানালেন গেইলের আচরণে ‘শিশুদের মতো কেঁদেছিলেন’ তিনি।

২০১৫ তে অনুষ্ঠিত অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপে ঘটে ওই ঘটনা। সিডনিতে, যেখানে থাকছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল, সেখানেই লিয়্যান রাসেল নামের ওই নারী কাজ করতেন ম্যাসুস হিসেবে। লিয়্যান অভিযোগ তুলেছেন, সেখানেই এক ড্রেসিংরুমে তার সামনে নিজেকে অশালীনভাবে উন্মুক্ত করেন গেইল।

নিউ সাউথ ওয়েলস সুপ্রিমকোর্টে চলা এই মামলার শুনানিতে হাজির হয়ে সেদিনের ঘটনার বর্ণনা দেন লিয়্যান।

বলেন, ‘আমি চেঞ্জিং রুমে ঢুকেছিলাম, তখনই আমাকে গেইলের মুখোমুখি হতে হয়। গেইল আমাকে জিজ্ঞেস করেন, ‘কী খুঁজছেন?’ আমি বলি, একটি তোয়ালে।’

লিয়্যান রাসেল

লিয়্যান রাসেল

‘এরপরই তিনি তার তার পরনে থাকা টাওয়েলটি খুলে ফেলেন। আমি তার যৌনাঙ্গের ঊর্ধ্বাঙ্গ দেখে ফেলি। সাথে সাথে চোখ নামিয়ে ফেলি আমি। এবং সেখান থেকে বেরিয়ে যাই,’ বলেন লিয়্যান।

কেবল গেইলই নয়, আরেক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটার ডোয়াইন স্মিথ-এর দিকেও ‘অশালীন ব্যবহারের’ অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

স্মিথ নিজেও স্বীকার করেছেন গেইলের ঘটনার আগের দিন লিয়্যানকে ‘সেক্সি লাগছে’ লিখে মোবাইলে বার্তা পাঠিয়েছিলেন তিনি।

তবে গেইলের আচরণের পরপরই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের মনোবিজ্ঞানীকে এই ব্যাপারে অবহিত করেন লিয়্যান। অভিজ্ঞতার বর্ণনা দিতে গিয়ে শিশুদের মতো কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন তিনি।

এদিকে, পুরো বিষয়টিকেই অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যমের তাকে ‘ধ্বংসের চেষ্টা’ হিসেবে অভিহিত করেছেন গেইল। এই বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ করায় দ্য সিডনি মর্নিং হেরাল্ড, দ্য এইজ এবং দ্য ক্যানবেরা টাইমসের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছেন গেইল।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট