শ্বশুরবাড়ির ১৩ জনকে মারলেন স্ত্রী স্বামীকে মারতে গিয়ে

শ্বশুরবাড়ির ১৩ জনকে মারলেন স্ত্রী স্বামীকে মারতে গিয়ে

আমজাদের সঙ্গে আসিয়ার অমতে বিয়ে দেয়া হয়। তাই স্বামীকে বিয়ের পর মোটেও সহ্য করতে পারতেন না তিনি। প্রেমিকের এনে দেয়া বিষ মেশানো দুধ খাইয়ে স্বামীকে হত্যা করার পরিকল্পনাও করেছিলেন তিনি। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির ১৩ জনের প্রাণ গেল তার ভুলে স্বামীর পরিবর্তে। ঘটনার পর প্রেমিক ও আসিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের মুজাফফরগড়ে ঘটেছে এই ঘটনা।

দুই মাস আগে মুজাফফরগড়ের দৌলতপুরার আমজাদের সঙ্গে বিয়ে হয় আসিয়ার। বিয়ের পরও প্রেমিকের সঙ্গে সম্পর্ক টিকিয়ে রেখেছিলেন তিনি। শেষমেশ তিনি স্বামীকে হত্যার পরিকল্পনা করেন।

পরিকল্পনা অনুযায়ী সোমবার আমজাদকে দেয়া দুধের সঙ্গে বিষ মেশান আসিয়া। কিন্তু কোনো কারণে আমজাদ দুধ খাননি। সেই দুধ দিয়ে লাচ্ছি তৈরি করেন আসিয়ার শাশুড়ি। শিশুসহ বাড়ির ২৭ জন সেই লাচ্ছি খায়। ১৩ জনের মৃত্যু হয়। বাকিদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

প্রথমে সবাই ধারণা করেছিলেন যে দুধে টিকটিকি পড়ায় বিষক্রিয়া হয়েছিল। কিন্তু পরে পুলিশ হেফাজতে আসিয়া স্বীকার করেন যে তিনি স্বামী আমজাদকে হত্যার উদ্দেশ্যেই দুধে বিষ মিশিয়েছিলেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুজাফফরগড়ের সিনিয়র পুলিশ অফিসার ওয়াইস আহমাদ জানিয়েছেন, আসিয়া ও তার প্রেমিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দুধে মেশানোর জন্য বিষ আসিয়াকে তার প্রেমিক দিয়েছিলেন। জেরার মুখে দুধে বিষ মেশানোর কথা স্বীকার করেছেন আসিয়া।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট