ফেস্টিভ স্পেশ্যাল ফিটনেস টিপস

ফেস্টিভ স্পেশ্যাল ফিটনেস টিপস

শীত মানেই পার্টি ফেস্টিভ্যাল আর দেদার খানাপিনা। এ দিকে অঘ্রাণ মাস। চলছে পুরোদমে বিয়ে বাড়ির মরসুম। মেহন্দি থেকে আইবুড়োভাত, বিয়ে থেকে রিসেপশন, সুন্দর  করে সাজগোজ তো মাস্ট। বিয়েবাড়ি, পার্টির প্ল্যান করে বহুদিন আগেই একটা সুন্দর লং ড্রেস কিনে রেখেছিলেন।  কিন্তু পুজো পার্বণের মরসুমে এটা সেটা খাওয়ার পর ওজন কিঞ্চিৎ বেড়েছে। তাতেই ড্রেস আর ঠিকঠাক ফিট করছে না।  শখ করে বানানো বোট নেকের ব্লাউজটা বেমানান লাগছে। অতএব উপায়?  এ দিকে হতে সময় বেশি নেই। তাই আপনাদের জন্য রইল কয়েকটি ফিটনেস টিপস। কয়েক দিন একটু কসরত করেই দেখুন না।

টায়ার ফ্লিপ

এখনকার যে কোন জিমেই টায়ার ফ্লিপের ব্যবস্থা থাকে। রানিং বা সাইক্লিং এর পর করতে পারেন টায়ার ফ্লিপ। পায়ের পাতায় ব্যালান্স করে টায়ারে রেখে করতে পারেন স্কোয়াট। এ ছাড়াও আরও নানা ভাবে ব্যবহার করতে পারেন এই টায়ার। ওয়ার্কআউটের চার্টে টায়ার ফ্লিপ থাকলে আপনার পায়ের মাসলে জোর বাড়বে। হার্ট রেট বাড়বে এবং বডি টোন্‌ড হতে সাহায্য করবে।

বক্স স্কোয়াট

স্কোয়াট আমরা নানা ভাবে করে থাকি। উচ্চতা অনুযায়ী বক্স নিয়ে জাম্পিং করে স্কোয়াট করুন। এতে কার্ডিও এবং স্ট্যান্ডিং এক্সারসাইজ এক সঙ্গে হয়। এর ফলে রক্ত সঞ্চালন ভাল হয়।

ফ্রন্ট স্কোয়াট

জিমের ট্রেনারের নির্দেশ অনুযায়ী এই ওয়ার্কআউট করুন। যতটা ওয়েট আপনার জন্য প্রয়োজন সেই অনুপাতে নিয়ে এই এক্সারসাইজ করুন। বিভিন্ন জয়েন্টের ব্যথা এবং ওজন কমাতে সাহায্য করে এই স্কোয়াট।

ব্যাটেল রোপিং

প্রাচীন মিশরে নানা কাজে দড়ি ব্যবহার হত। দড়ি দিয়ে খেলা দেখানো ছাড়াও যুদ্ধে ব্যবহৃত হত। সেই পুরনো কনসেপ্ট থেকেই এখনকার ব্যাটেল রোপিং। প্রায় সব জিমেই থাকে। দড়ির একপ্রান্ত ধরে দ্রুত গতিতে হাতের মুভমেন্টের মধ্যে দিয়ে এই ওয়ার্ক আউট করা হয়। এর ফলে ফিটনেস তো বাড়েই। এ ছাড়াও বডি টোনড এবং কাঁধের জোর বাড়াতে ভীষণভাবে সাহায্য করে এই রোপিং।

জিমে যাওয়ার মত হাতে সময় এখন আমাদের অনেকেরই থাকে না। সে ক্ষেত্রে বাড়িতে ম্যাট কিনে পুশ আপ, স্কোয়াট, প্ল্যাঙ্ক এবং অ্যাবসের বিভিন্ন এক্সারসাইজ খুব উপকারী। সঙ্গে ফ্রি হ্যান্ড, রানিং, ডায়েট তো রয়েছেই। নিজের ফিটনেস চার্ট নিজেই বানান। প্রতি সপ্তাহে একবার করে ওয়েট মাপুন। বদলটা নিজে উপলব্ধি করতে পারবেন। শুরু করুন আজ থেকে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট