গ্রিজমানের জোড়া গোলে ফাইনালে ফ্রান্স

গ্রিজমানের জোড়া গোলে ফাইনালে ফ্রান্স

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে জার্মানিকে ২-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছে স্বাগতিক ফ্রান্স। দলটির জয়ে জোড়া গোল করেন অ্যান্তনিও গ্রিজম্যান।

মার্সেইয়ে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাতে অনুষ্ঠিত ম্যাচের ৭ মিনিটে এগিয়ে যাওযার ভালো সুযোগ পায় ফ্রান্স। প্রতিপক্ষের ডি-বক্সের ভেতর গ্রিজম্যানের জোরাল শট দারুণ দক্ষতায় রক্ষা করেন জার্মান গোলরক্ষক ম্যানুয়াল নয়ার।

ম্যাচের ১৩ মিনিটে ফ্রান্স রক্ষণে দারুণ আক্রমণ চালায় জার্মানি। কিন্তু গোল করতে ব্যর্থ হন থমাস মুলার। পরেই মিনিটে আবারও গোল মিস করেন দলটির ফরোয়ার্ড এমরে কান।

প্রথমার্ধে ফ্রান্সের চেয়ে বেশ এগিয়ে ছিল জার্মানি। একের পর এক আক্রমণে প্রতিপক্ষের রক্ষণে ফাটল ধরানোর চেষ্টা চালালেও গোলের দেখা পায়নি দলটি। তবে প্রথামার্ধের যোগ করা সময়ে পেনাল্টি পেয়ে যায় ফ্রান্স। সেই সুযোগটি বেশ ভালো ভাবেই কাজে লাগিয়ে দলকে ১-০ গোলে এগিয়ে দেন গ্রিজম্যান। বাস্টিয়ান শোয়াইনস্টাইগারের হাতে বল লাগায় এই সুযোগটি পায় স্বাগতিকরা।

মধ্যবিরতি থেকে ম্যাচে ফিরতে প্রাণপণ চেষ্টা চালায় জার্মানি। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাচ্ছিলোনা দলটি। উল্টো ম্যাচের ৭২ মিনিটে আবারো ফ্রান্সকে ২-০ গোলের লিড এনে দেন সেই গ্রিজম্যান। পগবার বাড়ানো বলে দারুণ ক্রসে প্রতিপক্ষের গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন তিনি। এবারের ইউরোতে এটি গ্রিজম্যানের ষষ্ঠ গোল।

দ্বিতীয়ার্ধে আরো পিছিয়ে পড়ে বেশ হতাশ হয়ে পড়ে জার্মানি। তারপরও ম্যাচে ফিরতে এতটুকু চেষ্টার কমতি ছিল না দলটির। ৭৪ মিনিটে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়ানোর ভাল একটি সুযোগ পেয়েছিল তারা। কিন্তু কিমিচের দূরপাল্লার শট ফ্রান্সের গোলবারে লেগে ফিরে আসে।

এদিকে ম্যাচের ৮৬ মিনিটে হ্যাটট্রিক করার দারুণ সুযোগ পান গ্রিজম্যান। কিন্তু প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে এবার আর পরাস্ত করতে পারেনি তিনি। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠে ছাড়ে ফ্রান্স। তাতেই এবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে দ্বিতীয় দল হয়ে ফাইনালের টিকিট পেল দলটি।

১৯৫৮ সালে বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচের পর কোনো প্রতিযোগিতামূলক ফুটবলে জার্মানির বিপক্ষে এই প্রথম জিতল ফ্রান্স।

আগামী রোববার সাঁ-দেনিতে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পর্তুগালের বিপক্ষে লড়বে ফ্রান্স।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট