কলারোয়ায় বন্ধুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ দুই

কলারোয়ায় বন্ধুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ দুই

সাতক্ষীরার কলারোয়ার জালালাবাদ ইউনিয়নের একড়া প্রাইমারি স্কুল মাঠে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’  দুই ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। চিকিৎসার জন্য তাদেরকে  সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, এ সময় তাদের দুই সদস্যও আহত হয়েছেন।

আহত ব্যক্তিরা  হলেন, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঘরছালা গ্রামের মৃত শওকত আলীর পুত্র রমজান মোল্যা (৩৩) ও কলারোয়ার  সোনাবাবাড়িয়া ইউনিয়নের মাদরা গ্রামের মৃত শুকুর আলীর পুত্র মফিজুল ইসলাম (২৬)। এ সময় আহত হয়েছেন অভিযান পরিচালনাকারী থানার এসআই পিন্টু লাল দাস ও সঙ্গীয় কনস্টেবল রেজাউল ইসলাম। পুলিশ জানিয়েছে, গুলিবিদ্ধ  দু’জনই বেআইনি অস্ত্র ব্যবসায়ী। তাদের কাছ থেকে একটি রিভলবার ও দুটি বোমা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানানো হয়। কলারোয়ার জালালাবাদের একড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বন্দুকযুদ্ধের ওই ঘটনাটি ঘটে।

জেলা পুলিশের তথ্য বিষয়ক কর্মকর্তা এসআই কামাল হোসেন জানান, বুধবার ভোর রাত দেড়টার দিকে  কলারোয়া থানার  এসআই পিন্টু লাল দাস ও  এএসআই জাহিদুল ইসলাম টহলদানকালে খবর পান যে একড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে একদল চোরাকারবারী অস্ত্র বেচাকেনা করছে। তারা দ্রুত সেখানে পৌছালে সন্ত্রাসীরা তাদের লক্ষ্য করে  বোমা ও গুলি নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশের দুই সদস্য আহত হন। পুলিশও এ সময় পাল্টা গুলি ছুড়লে দুই ব্যক্তি আহত হন। তিনি জানান,  আহত রমজান ও মফিজুল ভারত থেকে চোরাপথে অস্ত্র  পাচার করে  বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় সন্ত্রাসীদের কাছে  বিক্রি করে আসছিল। তাদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা ও কলারোয়া থানায় মামলা রয়েছে।

আহতদের উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ব্যবসা ও পুলিশের ওপর হামলার পৃথক দুটি মামলা হচ্ছে।

সম্পর্কিত সংবাদ
কামরুল হাসান