শুরু হচ্ছে এশিয়ান সিনেমা রেট্রোস্পেক্টিভ

শুরু হচ্ছে এশিয়ান সিনেমা রেট্রোস্পেক্টিভ

এশিয়া মহাদেশ বিশাল এবং বৈচিত্রময় মানব ইতিহাসের সমৃদ্ধ অঞ্চল। পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি জনগোষ্ঠী এই অঞ্চলে বসবাস করে। ফলে পৃথিবীর মানুষের ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতির সবচেয়ে প্রাণবান ক্ষেত্র এশিয়া। চলচ্চিত্রে এশিয়ার বিচরণ আদি এবং সমৃদ্ধ। ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটি এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি’র উদ্যোগে এশিয়ার ১৯টি দেশের ৫৬ জন চলচ্চিত্রকারের ৬৫টি চলচ্চিত্র নিয়ে ১৭ সপ্তাহের ‘এশিয়ান সিনেমা রেট্রোস্পেক্টিভ’ আয়োজন করা হয়েছে। ‘এশিয়ান সিনেমা রেট্রোস্পেক্টিভ’ মূলত এশিয়ান চলচ্চিত্রের ধরণ, গতি-প্রকৃতি, এশিয়ার দিকপাল চলচ্চিত্রকারদের সাথে পরিচয়- জানাবোঝার পাঠ চলবে। প্রতিটি চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর পূর্বে প্রদর্শিতব্য চলচ্চিত্র, চলচ্চিত্রকার ও তাদের দেশের চলচ্চিত্র-সংস্কৃতিবিষয়ক আলোচনা উপস্থাপন করা হবে। রেট্রোস্পেক্টিভ শেষে এশিয়ান সিনেমা বিষয়ক একটি বিস্তৃত সেমিনারের আয়োজন করা হবে। রেট্রোস্পেক্টিভে অংশগ্রহণকারীদের চলচ্চিত্র আলোচনা লেখার ক্ষেত্রকে উৎসাহিত করা হবে।

শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে এশিয়ান সিনেমা রেট্রোস্পেক্টিভ ২০১৬, , সেশন হবে শুক্র ও শনিবার বিকাল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। সপ্তাহে ৩টি চলচ্চিত্র প্রদর্শনী এবং সংশ্লিষ্ট চলচ্চিত্র আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে।

‘বিশ্বচলচ্চিত্র অনুধাবন কর্মসূচি ২০১৬’ এর অংশ হিসেবে ‘এশিয়ান সিনেমা রেট্রোস্পেকিভ’ অনুষ্ঠিত হবে।  নিবন্ধন করে যে কেউ এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। নিবন্ধনের জন্য বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার লিফটের ছয়ে ৭০১ নম্বর কক্ষে যোগাযোগ করতে হবে।

এশিয়ার যে সকল দেশের চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে-

বাংলাদেশ, ভারত, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান, চীন, পাকিস্তান, থাইল্যান্ড, তাইওয়ান, শ্রীলঙ্কা, ভুটান, মালয়েশিয়া, ফিলিস্তিন, ইরাক, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, আফগানিস্তান, সৌদি আরব।

আগামীকাল শুক্রবার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার ইন্টারন্যাশনাল ডিজিটাল কালচারাল আর্কাইভ কক্ষে বিকাল ৫টায় বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকার সৈয়দ সালাহউদ্দিন জাকী নির্মিত ‘ঘুড্ডি’ চলচ্চিত্রটি প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে ‘এশিয়ান সিনেমা রেট্রোস্পেক্টিভ’ শুরু হবে।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক