বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে অভিবাসীদের অবদান বেশি

বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে অভিবাসীদের অবদান বেশি

বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে তৈরি পোশাক খাতের চেয়ে অভিবাসন খাতে অবদান বেশি। শনিবার ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত ‘বাজেট ও শ্রম অভিবাসন’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনায় আহমেদ চৌধুরী কিরণ একথা জানান।

মূল প্রবন্ধে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, তৈরি পোশাক খাতে ২০১৫ সালে নিট রপ্তানি আয় ১৩ বিলিয়ন ডলার। কিন্তু প্রবাসীদের রেমিটেন্স থেকে আয় হয় ১৫ বিলিয়ন ডলার। তবে জাতীয় বাজেটে অভিবাসন খাতের জন্য মোট বরাদ্দ বাজেটের ০.১৬ শতাংশ।

তিনি আরো জানান, বাংলাদেশ থেকে যদি দক্ষ জনশক্তি পাঠানো যায় তাহলে এই আয় দ্বিগুণ হবে। ফিলিপাইন আমাদের দেশের চেয়ে অর্ধেক জনশক্তি পাঠিয়ে দ্বিগুণ আয় করছে।

গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিপিডির নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, নারীদের জন্য জেন্ডার বাজেটের মত প্রবাসীদের জন্য আলাদা প্রকল্প চালু করা উচিত।

তিনি আরো জানান, প্রবাসীরা মূলত ঋণ নিয়ে বিদেশে যায়। এর ফলে তাদের প্রেরিত রেমিটেন্স এর নিট খরচ বের করতে হবে। বর্তমানে নিরাপদ অভিবাসন একটি বৈশ্বিক অঙ্গীকার। আর এজন্য দক্ষ জনশক্তি যাতে রপ্তানি হয় এবং প্রবাসী শ্রমিকরা যাতে দেশে ফিরে কর্মসংস্থানে জড়িত হতে পারে এদিকে সরকারের লক্ষ্য রাখতে হবে।

গোলটেবিল আলোচনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডিবেট ফর ডেম্রোক্রেসির পরিচালক ড. এসএম মোরশেদ। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিচালক ডা. মুহম্মদ নুরুল ইসলাম।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক