বিশ বছর পর লর্ডসে পাকিস্তানের জয়

বিশ বছর পর লর্ডসে পাকিস্তানের জয়

‘আলোাচিত’ লর্ডস টেস্ট জিতে নিয়েছে পাকিস্তান। স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে বড় ব্যবধানেই হারিয়েছে সফরকারীরা। বোলারদের নৈপুর্ণ্যেই জয় পেয়েছে সফরকারীরা। নিষিদ্ধ থেকে মাত্রই ক্রিকেটে ফেরা পাকিস্তানের স্পিনার ইয়াশির শাহ হয়েছেন ম্যাচ সেরা।

বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৭৫ রানের জয় পেয়েছে মিসবাহ বাহিনী। ফলে, চার ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচ শেষে ১-০ তে লিড নিল পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে দলপতি মিসবাহর ১১৪, আসাদ শফিকের ৭৩, মোহাম্মদ হাফিজের ৪০ আর ইউনিস খানের ৩৩ রানের সুবাদে পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৩৯ রান। জবাবে, ২৭২ রানে থেমে যায় ইংলিশদের প্রথম ইনিংস। দ্বিতীয় ইনিংসে এগিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নেমে পাকিস্তান ২১৫ রান করে অলআউট হয়। ফলে, ইংলিশদের জয়ের টার্গেট দাঁড়ায় ২৮৩ রান। পাকিস্তানি বোলিংয়ে বিপাকে পড়া স্বাগতিকরা ২০৭ রানে গুটিয়ে গেলে ৭৫ রানের জয় তুলে নেয় সফরকারীরা। ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথম ইনিংসে ক্রিস ওকস ৬টি আর স্টুয়ার্ট ব্রড তিনটি উইকেট দখল করেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথম ইনিংসে দলপতি অ্যালিস্টার কুক ৮১, জো রুট ৪৮, ক্রিস ওকস অপরাজিত ৩৫ রান করেন। ৭৯.১ ওভারে গুটিয়ে যাওয়ার আগে ইংলিশরা ২৭২ রান সংগ্রহ করে। পাকিস্তানের হয়ে স্পিনার ইয়াসির শাহ একাই ৬টি উইকেট দখল করেন। একটি করে উইকেট পান মোহাম্মদ আমির, রাহাত আলি ও ওয়াহাব রিয়াজ।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে হাফিজ ০ রানে বিদায় নিলেও আরেক ওপেনার শান মাসুদ করেন ২৪ রান। ২৩ রান আসে আজহার আলির ব্যাট থেকে। ইউনিস খান ২৫, মিসবাহ ০, শফিক ৪৯, সরফরাজ ৪৫, ইয়াসির শাহ ৩০ রান করেন।

সবক’টি উইকেট হারিয়ে ২১৫ রানে ইনিংস শেষ করে পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের হয়ে আরও ৫টি উইকেট দখল করেন ক্রিস ওকস। এছাড়া, মঈন আলি দুটি ও ব্রড তিনটি করে উইকেট দখল করেন।

২৮৩ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু ভালো হয়নি ইংল্যান্ডের। ওপেনার অ্যালিস্টার কুক ৮, অ্যালেক্স হেলস ১৬ আর তিন নম্বরে নামা জো রুট ৯ রান করে রাহাত আলির শিকারে পরিণত হন। মাঝে জেমস ভিঞ্চ ৪২, গ্যারি ব্যালান্স ৪৩ আর বেয়ারস্টো ৪৮ রান করে দলকে জয়ের পথ দেখান। শেষ দিকে ক্রিস ওকস ২৩ রান করেন। তবে, এই ইনিংসগুলো ইংলিশদের জয়ের পথে কাজে লাগেনি।

২০৭ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ১৯৯৬ সালের পর এই ভেন্যুতে পাকিস্তানকে জেতাতে বল হাতে ইয়াসির শাহ আরও চারটি উইকেট তুলে নেন। রাহাত আলি তিনটি ও মোহাম্মদ আমির দুটি উইকেট লাভ করেন। এছাড়া, একটি উইকেট দখল করেন ওয়াহাব রিয়াজ। ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন ইয়াসির শাহ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট