ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নগ্ন হয়ে শতাধিক নারীর প্রতিবাদ

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নগ্ন হয়ে শতাধিক নারীর প্রতিবাদ

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দিনকয়েক আগেই প্রতিবাদ জানাতে যাবতীয় কুন্ঠা, অস্বস্তি ও ভীতিকে বর্জন করে নগ্ন হয়ে রাস্তায় নেমেছিলেন প্রায় ৩ হাজার নর-নারী। মার্কিন শিল্পী স্পেনসার টিউনিকের আহ্বানে সাড়া দিয়ে বসুন্ধরাকে বাঁচাতে নগ্ন হয় ব্রিটিশ শহর হাল।

এবার পালা আমেরিকার। প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য হোয়াইট হাউসের দরজা বন্ধ করতে শিল্পী টিউনিকেরই ডাকে ক্লিভল্যান্ডের রাস্তায় নগ্ন প্রতিবাদ জানালেন শতাধিক মহিলা।

প্রাথমিক দৌড়ে কিছুটা এগোনোর পর রিপাবলিকান ন্যাশনাল কনভেনশনে প্রেসিডেন্ট হিসেবে তুলে ধরার কথা ট্রাম্পের নাম। সোমবার এই কনভেনশন শুরুর দিনেই মহিলাদের নগ্ন হয়ে রাস্তার নামার ডাক দিয়েছিলেন শিল্পী তথা ফোটোগ্রাফার স্পেনসার টিউনিক। তার মতে, ‘ট্রাম্প একজন পরাজিত মানুষ।’

টিউনিকের ডাকে সাড়া দিয়ে হাতে আয়না নিয়ে প্রতিবাদে সামিল হল ১৩০ জন মহিলা। প্রতিবাদের এই ছবিই নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে প্রকাশ করবেন টিউনিক। তাঁর ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, প্রতিবাদীদের হাতের আয়নায় প্রতিফলিত হবে প্রগতিশীল মহিলাদের জ্ঞান এবং ‘মায়ের চরিত্রের’ কনসেপ্ট।

নুড ফোটোগ্রাফির জন্য বিখ্যাত স্পেনসার টিউনিকের মতে, এবার তাঁর মনে হয়েছে, এই ইস্যুতে তাঁর কিছু একটা করা দরকার। এটাই তাঁর সবচেয়ে রাজনৈতিক ফোটোশ্যুট বলে দাবি করেছেন টিউনিক। তাঁর মতে, ‘শুধুমাত্র নভেম্বরে শুধু ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ব্যালট বাক্সে ভোট দেওয়াটাই যথেষ্ট ছিল না।’

ট্রাম্পের মহিলা ও সংখ্যালঘুদের প্রতি বিদ্বেষের তীব্র নিন্দা করে টিউনিক বলেছেন, ‘আমার স্ত্রী ও দুই মেয়ে আছে। মহিলা ও সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের ব্যবহৃত ভাষা ও ঘৃণা রিপাবলিকান পার্টির নয় বলেই আমার বিশ্বাস।’

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট