দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যর্থ মুস্তাফিজের সাসেক্স

দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যর্থ মুস্তাফিজের সাসেক্স

টস জিতে ব্যাট, ব্যাটিংয়ে উইকেটে বড় স্কোর গড়তে না পারা আর বোলাদের ব্যর্থতা। এক মুস্তাফিজই ছিলেন অনুজ্জ্বল। তাই সারের বিপক্ষে হারতো হলো সাসেক্স।

মুস্তাফিজ ৩.২ ওভার বল করে ছিলেন উইকেট শুন্য, রান দিয়েছেন ৩১। অথচ গত ম্যাচেই দুর্দান্ত মুস্তাফিজে জয় পেয়ে ছিলো সাসেক্স। এসেক্সের বিপক্ষে ম্যাচ সেরা হওয়া মুস্তাফিজ চার ওভারে চার উইকেটের বিনিময়ে রান দিয়ে ছিলেন ২৩।

ব্যাটসম্যানদের বড় স্কোর না গড়ার খেসারত দিয়ে সাসেক্সকে হারতে হলো ৬ উইকেটে। ওভালের এই ম্যাচে জয় পেয়েছে সারে।

আগে ব্যাট করে সাসেক্স নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রান সংগ্রহ করে। ব্যাটিং উইকেটে জয়ের জন্য এটা খুব কঠিন ছিল না সারের ব্যাটসম্যনদের। ১৮.২ ওভার ব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় সারে।

জিততে না পারলেও মোস্তাফিজ ছিলেন স্বভাবসূলভ বোলার হিসেবেই। তার প্রথম তিন ওভার থেকে সারের ব্যাটসম্যানরা মাত্র ২৩ রান তুলতে পারেন। তবে, ১৯তম ওভারে মোস্তাফিজের প্রথম দুই বলে একটি ডাবল আর একটি ছক্কায় ৮ রান তুলে নেয় প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যান ক্রিস মরিস। ফলে, ৩.২ ওভার করে মোস্তাফিজের খরচ হয় ৩১ রান। নিজের প্রথম ম্যাচে ৪ ওভারে ২৩ রান খরচায় চারটি উইকেট পেলেও এই ম্যাচে কাটার মাস্টারকে থাকতে হয় উইকেট শূন্য।

সাসেক্সের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ক্রেইগ কাচোপা। ওপেনার ক্রিস ন্যাশ করেন ৩৯ রান। সল্ট ১৮, লুক রাইট ৭, ম্যাট মাচান ২১, ক্রিস জর্ডান ২ রান করে বিদায় নেন।

ব্যাটিং উইকেটে ১৫৪ রানের সহজ টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে সারের ওপেনার জ্যাসন রয় ২৫ বলে ৩৬ রান করে বিদায় নেন। আরেক ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ ১৩ রান করেন। এছাড়া, সিবলি ৪০, জো বার্নস ১৩, ফোকস ২২ আর মরিস ২০ রান করেন। বার্নসকে তালুবন্দি করেন মোস্তাফিজ।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট