২০১৮ সালে পদ্মা সেতু দিয়ে বাস এবং ট্রেন চলাচল শুরু হবে

২০১৮ সালে পদ্মা সেতু দিয়ে বাস এবং ট্রেন চলাচল শুরু হবে

২০১৮ সালে বহুল প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতু দিয়ে একসাথে বাস এবং ট্রেন চলাচল শুরু হবে জানালেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রোববার সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে পদ্মা সেতু প্রকল্পের সাথে রেল লিংক স্থাপন বিষয়ক এক সমন্বয় সভায় এ কথা জানান। সভায় রেলপথ মন্ত্রী মো. মুজিবুল হক উপস্থিত ছিলেন।

সেতুমন্ত্রী জানান, ঢাকা থেকে ফতুল্লা হয়ে সেতুর ওপর দিয়ে ভাঙ্গা জংশন পর্যন্ত ৮২ কিলোমিটার রেললাইন স্থাপন করবে রেলপথ মন্ত্রণালয়।

ওবায়দুল কাদের জানান, ভাঙ্গা থেকে বিদ্যমান রেললাইন অনুযায়ী ফরিদপুর, যশোর সংযুক্ত হওয়ার পাশাপাশি পরবর্তী পর্যায়ে বরিশালকেও রেলপথে সংযুক্ত করা হবে।

সেতুমন্ত্রী আরো জানান, ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে পদ্মা সেতুর ওপর রেলওয়ের কাজ শুরু হবে। শেষ হবে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে। প্রথম পর্যায়ে মাওয়া থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত রেলওয়ের কাজ শেষ করা হবে। ভাঙ্গায় একটা জংশন হবে। এ সময়ের মধ্যে মাওয়া হতে সেতুর ওপর দিয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ৪২ কিলোমিটার রেললিংক স্থাপনের কাজ শেষ হবে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী দাবি করেছেন পদ্মা সেতু প্রকল্পের কাজ এ পর্যন্ত ৩৭ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বিদেশি কর্মকর্তাদের বিশেষ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

এ সময় রেলপথ মন্ত্রী মো. মুজিবুল হক জানান, ইতোমধ্যে জি-টু-জি ভিত্তিতে রেললাইন স্থাপনে চীন সরকারের মনোনীত রেলওয়ে গ্রুপ কোম্পানির সঙ্গে প্রাথমিক সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে, শিগগিরই বাণিজ্যিক চুক্তি সই হবে। এ প্রকল্পে প্রায় ৩৪ হাজার কোটি টাকা সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এমএএন ছিদ্দিক, সেতু বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ফিরোজ সালাহ্ উদ্দিন, সড়ক ও জনপথের (সওজ) প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. আমজাদ হোসেন, পদ্মা সেতু প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম, রেললিংক প্রকল্প পরিচালক সাগর কৃষ্ণ চক্রবর্তীসহ এসডব্লিউও-পশ্চিমের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক