শেখ জামালের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের

শেখ জামালের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের

পর্দা উঠলো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ফুটবল নবম আসরের। রোববার চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী ম্যাচে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের মুখোমুখি হয় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব।নামে ও ভারে শেখ জামাল ফেবারিট থাকলেও চমক লাগানো দল হিসাবে আবির্ভূত হয়েছিল আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ। লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন শেখ জামালকে ১-১ গোলে রুখে দিয়েছে আরামবাগ।

রোববার চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১৬ মিনিটে নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এমেকা ডারলিংটনের গোলে এগিয়ে যায় শেখ জামাল। মিডফিল্ডার রাকিব সরকারের সঙ্গে ওয়ান-টু করে আরামবাগ ডিফেন্স ভেদ করেন এমেকা। বক্সের মাঝামাঝি স্থান থেকে নেন ডান পায়ের জোরালো শট। আরামবাগ গোলরক্ষক মিটুল হাসান বল রোখার চেষ্টা করেও পারেননি। ১-০তে লিড নেয় দেশের সবচেয়ে সফল ক্লাবটি।

লিড নেয়ার পর শেখ জামাল আক্রমণের ধার বাড়িয়ে দেয়। ২২ মিনিটে ফ্রি কিক থেকে ভালোই শট নিয়েছিলেন গাম্বিয়ান মিডফিল্ডার ল্যান্ডিং ডারবো। কিন্তু আরামবাগ গোলরক্ষক মিটুল হাসান ফিস্ট করে বিপদমুক্ত করেন। ৪১ মিনিটে দ্বিতীয় গোলের দেখা পেতে পারত শেখ জামাল। সহজ সুযোগ নষ্ট করেন ল্যান্ডিং ডারবো। জোরে মারতে গিয়ে বল তুলে দেন ক্রসবারের ওপর দিয়ে।

দ্বিতীয়ার্ধে চিত্র পাল্টে যায়। যেখানে ঘর গুছানোর পাশাপাশি আক্রমণও করেছে আরামবাগ। শেষ চমকটা দেখায় তারা ইনজুরি টাইমে। ৯২ মিনিটে মনসুর আমিনের ক্রসে ছোট বক্সের ওপর থেকে ভলি শটে আরামবাগকে সমতায় ফেরান ফরোয়ার্ড মো: আবদুল্লাহ। ম্যাচ হয় ড্র।

তবে ম্যাচ শেষ হওয়ার আগে মেজাজ হারিয়ে উত্তপ্ত বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন আরামবাগের নাইজেরিয়ান ডিফেন্ডার ইসা ইউসুফ ও শেখ জামালের ডারলিংটন। ফলে রেফারি দ্বিতীয়বারের মতো তাদের হলুদ কার্ড দেখায়। দুই দলই ১০ জনের দলে পরিণত হয়ে মাঠ ছাড়ে।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট