যে কারণে প্রতিদিন কলা খাওয়া উচিত

যে কারণে প্রতিদিন কলা খাওয়া উচিত

কলার গুণ সম্পর্কে আপনার নতুন করে জানার কিছু নেই। একটি মাঝারি সাইজের কলায় ৪২২ মিলিগ্রাম মিনারেল রয়েছে। আরো নানা ভিটামিন উপাদানে পূর্ণ ফল কলা। এখানে এর আরো ৫টি ব্যবহারিক দিক সম্পর্কে দেখুন যা নাও জানতে পারেন।

১. স্পোর্টস ড্রিংকস : বিজ্ঞান বিষয়ক জার্নাল ‘প্লস ওয়ান’-এ প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৪ জন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সাইক্লিস্টদের ৩ ঘণ্টার পথ পাড়ি দিতে বলা হয়। তাদের এক দলকে ১৫ মিনিট পর পর কার্বোহাইড্রেড পানীয় এবং অপর দলকে অর্ধেক কলা খেতে দেওয়া হয়। তাদের সবার পারফরমেন্স এক থাকলেও পরীক্ষায় দেখা যায়, যারা কলা খেয়েছিলেন দেহে আরো বেশি শক্তি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ছিলো। তাই খেলাধুলার ক্ষেত্রে কলার ব্যবহার এড়িয়ে যাওয়া যায় না।

২. বিপাকক্রিয়া ত্বরাণ্বিত : হেলথকার্ব লাভারস এক প্রতিবেদনে বলে, প্রতিদিন ১০-১৫ গ্রাম কলা খাওয়া উচিত। কলা স্টার্চের কার্যকারিতা নষ্ট করে দেয়। স্টার্চ কার্বোহাইড্রেট থেকে উৎপন্ন উপাদান যা হজমের শক্তি নষ্ট করে দেয়।

৩. রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে : আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন জানায়, কলার পটাশিয়াম রক্তচাপকে সুষ্ঠু রাখে। যত পটাশিয়াম খাবেন, কিডনি দেহে তত সোডিয়াম নিঃসরণ করবে। ফলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত হবে এবং তা উচ্চমাত্রায় চলে যেতে দেবে না। আর রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত থাকলে স্ট্রোকের সম্ভাবনা ২১ শতাংশ কমে যায়া।

৪. উপকারী ব্যাকটেরিয়ার জন্য ভালো : দেহে বিরাজমান উপাকারী ব্যাকটেরিয়া হজমে সহায়তা করে। এদের সঙ্গ দেয় প্রিবায়োটিকস যার সরবরাহ আসে কলা থেকে। এটি এমন এক কার্বোহাইড্রেট যা দেহ সহজে হজম করতে পারে বলে জানায় আমেরিকার মায়ো ক্লিনিক। এ সব মিলিয়ে স্বাস্থ্যকর অন্ত্র তৈরি হয় আপনার।

৫. পাকস্থলীর সমস্যা দূর করে : মাঝারি একটি কলায় ৩.১ গ্রাম ফাইবার রয়েছে যা পাকস্থলীতে গিয়ে দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায়। একটি অংশ খুব সহজে হজমে সহায়তা করে। অপর অংশ হজম হয় না, তবে তারা অপ্রয়োজনীয় অংশ সহজে বের হয়ে যেতে সহায়তা করে। তাই শুধু সহজে হজমের জন্যেই নয়, সহজে অপ্রয়োজনীয় অংশ বের হতেও সহায়তা করে কলা। পাশাপাশি পাকস্থলীতে এসিডিটির মাত্রাকে নিষ্ক্রিয় করতে সহায়তা করে কলা। ফলে প্রদাহজনিত সমস্যা দূর হয়।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট