নতুন গভর্নরের প্রথম মুদ্রানীতি ঘোষণা

নতুন গভর্নরের প্রথম মুদ্রানীতি ঘোষণা

চলতি অর্থবছরের প্রথমার্ধের (জুলাই-ডিসেম্বর) নতুন মুদ্রানীতি  ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মঙ্গলবার সকাল ১১টার একটু পর বাংলাদশ ব্যাংক গভর্নর ফজলে কবির এই মুদ্রানীতি ঘোষণা করেন।নতুন এই মুদ্রানীতিতে প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলন ধরা হয়েছে ৭.২ শতাংশ।

ফজলে কবির জানান, সরকারের বাজেটে ঘোষিত ৭.২ শতাংশ দেশজ উৎপাদন প্রবৃদ্ধি ও ৫.৮ শতাংশ মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রার এবং বর্ধিষ্ণু অর্থনীতিতে বর্ধিত মুদ্রায়নের চাহিদার সংকুলানে ২০১৭ অর্থবছরে ব্যাপকমুদ্রার প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলিত হয়েছে ১৫.৫ শতাংশে। এতে অভ্যন্তরীণ ঋণের প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলিত হয়েছে ১৬.৪ শতাংশে।

তিনি আরো জানান, অভ্যন্তরীণ ঋণের প্রবৃদ্ধির মধ্যে বেসরকারি খাতের ঋণের প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলন ধরা হয়েছে ১৬.৫ শতাংশ। আর সরকারি খাতের ঋণের প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন ধরা হয়েছে ১৫.৯ শতাংশে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ঘোষিত গত মুদ্রানীতিতে জুন পর্যন্ত বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয়েছিল ১৪.৮০ শতাংশ। অবশ্য নির্ধারিত সময়ের ৫ মাস আগে এই প্রবৃদ্ধি অর্জন হয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত মে মাসের শেষে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি দাঁড়িয়েছে ১৬.৪০ শতাংশ।

ওই মুদ্রানীতিতে দেশজ উৎপাদন বা জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৬.৮ থেকে ৬.৯ শতাংশ;  সরকারের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে যা কিছুটা কম ছিল।

গভর্নর জানান, নতুন মুদ্রানীতিতে যে প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে তা পর্যাপ্ত বলে মনে করছি। আমরা এ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে পারবো বলে আশা রাখি।

তিনি জানান, এই ঋণ প্রবাহ অনুৎপাদনশীল ঝুঁকিপূর্ণ কাজে ব্যবহার না হয়ে যাতে অভ্যন্তরীণ ও রপ্তানি চাহিদার জন্য উৎপাদনের প্রকৃত প্রয়োজনে সদ্ব্যবহার হয়- সেদিকে লক্ষ্য রাখার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক নজরদারি নিবিড়তর করবে।

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক