ত্বকের যন্তে ও রুপচর্চায় মধুর ব্যবহার

ত্বকের যন্তে ও রুপচর্চায় মধুর ব্যবহার

মধু আপনি যদি বলেন, এটা খায় না মাথায় দেয়! তবে বলি, এটা দুটোই করে। শুধুমাত্র খাবার প্লেটেই নয়, রুপচর্চায় মধু দারুণ কাজ দেয়। ত্বক ও চুলের যত্নে, মধু আপনার রোজকার রুপচর্চায় জায়গা করে নিতে পারে।

ময়েশ্চারাইজিং মাস্ক: ত্বক অতিরিক্ত ড্রাই হয়ে গেলে মধু লাগাতে পারেন। ১ চামচ মধু নিয়ে ত্বকে লাগিয়ে নিন। ১৫-২০ মিনিট রেখে হালকা গরম জলে মুখ ধুয়ে নিন।

ক্লিনজার: মধু অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া হিসেবে কাজ করে। ত্বকের গভীরে গিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে। ত্বকের সুস্বাস্থ্য গড়ে তোলে।

ব্রণর ট্রিটমেন্ট: মধুর মধ্যে থাকা অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল ও অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান ব্রণর সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। ব্রণর উপর মধু ১০-১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখতে হবে। তারপর হালকা গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

সান ট্যান: মধুর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান। যা ত্বকে ট্যান পড়ার সম্ভাবনা দূর করে। মধু ও অ্যালোভেরা জেল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। ত্বকে মিশ্রণটি লাগিয়ে অপেক্ষা করুন, যতক্ষণ না তা শুকিয়ে যাচ্ছে। তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

চুলের কোমলতা: চুল ময়েশ্চারাইজ করতে, শ্যাম্পুর সঙ্গে মধু মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি দিয়ে চুল পরিষ্কার করে নিন। দেখবেন, আপনার চুল কেমন কোমল ও ঝলমলে হয়ে গেছে।

হেয়ার কন্ডিশনার: মধু কন্ডিশনার হিসেবে খুব ভালো কাজ দেয়। মধু ও নারকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। রুক্ষ, শুষ্ক চুলের জন্য মিশ্রণটি ভালো কাজ দেয়। মিশ্রণটি ২০ মিনিট লাগিয়ে রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

সম্পর্কিত সংবাদ
ডেস্ক রিপোর্ট