সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকলে জঙ্গিবাদের নেটওয়ার্ক ভাঙতে সময় লাগবে না

সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকলে জঙ্গিবাদের নেটওয়ার্ক ভাঙতে সময় লাগবে না

বুধবার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে গণমাধ্যম কর্মী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেন  সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকলে দেশে জঙ্গিবাদের যে নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে তা ভাঙতে বেশি সময় লাগবে না। এ জন্য শিক্ষা ব্যবস্থাকেও ঢেলে সাজাতে হবে।

গুটি কয়েক সন্ত্রাসী বা জঙ্গির হাতে জাতি জিম্মি হতে পারে না বলেও মন্তব্য করেন তারা।

ইসলামি ফাউন্ডেশনের সভাপতি শামীম আফজাল জানান, ‘সরকারি-বেসরকারি সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যে সকল বিতর্কিত পাঠ্য বই আছে সেগুলো বন্ধ করে দিতে হবে।’

দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ার জানান, ‘স্বাধীনতার বিরোধীতাকারী, সাম্প্রদায়িক শক্তি যারা চায় না বাংলাদেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাক তারাই এই জঙ্গিবাদের মদদদাতা। এই মদদদাতাদের চিহ্নিত করতে হবে।’

একাত্তর টিভির প্রধান নির্বাহী মোজাম্মেল বাবু জানান, ‘আমরা একটি লিবারেল রাষ্ট্র চাই। আবার জঙ্গিবিরোধী অভিযানের যারা সমালোচনা করছে তাদের তা করতে দিতে হবে। এটিই একটি লিবারেল দেশের নমুনা।’

ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জানান, ‘১৬ কোটি মানুষের দেশে জঙ্গিদের সংখ্যা হাতে গোনা কয়েকজন। রক্ত দিয়ে যে জাতি ভাষা ও স্বাধীনতা অর্জন করতে পারে সে জাতি কোনদিন হাতেগোনা কিছু জঙ্গির হাতে জিম্মি হতে পারে না। অবশ্যই আমরা তাদের মুলোৎপাটন করবো।’

ডিএমপি কমিশনার আরো জানান, যারা মসজিদে হামলা করে, যারা ঈদের জামায়াতে হামলা করে, তারা কেমন মুসলিম!

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু জানান, ‘জঙ্গি নির্মূলে শেখ হাসিনার সরকারের অঙ্গিকার দেশ, ধর্ম, সমাজকে বাঁচানোর জন্য। কাজেই এতে সকলকে অংশগ্রহণ করতে হবে। একি শুধু সরকারের একার কাজ নয়।’

সম্পর্কিত সংবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক